পিঠাটা এতটাই মজা যে আপনি একবার না বানানো পর্যন্ত বুঝতে পারবেন না। আর বানানোর নিয়মটাও খুবই সহজ। তারপরও ছোট্ট একটা ''কিন্তু '' আছে। আর সেটা হলো অল্প আঁচে না ভাজলে আর অতিরিক্ত গরম সিরাতে পিঠা ফেললে পিঠার গায়ে ঠোস খেয়ে যাবে সাথে ভেতরে শক্ত রয়ে যাবে। এই যে ছবি গুলো দেখছেন এটা আমার দ্বিতীয় চেষ্টার ফল। প্রথমবারের ভুল গুলো শুধরে নেয়ার পরই, এরকম পারফেক্ট রসে টুপটুপে পিঠা পেয়েছি। টিপসসহ রেসিপি থাকলো , ইনশাআল্লাহ আপনাদের ভালো লাগবে।

আমরা সাধারণত বৈশাখে পান্তার সাথে ইলিশ ভাজাটাই বেশি খেয়ে থাকি। কিন্তু এর সঙ্গে কিছু একটা ভর্তা না থাকলে আবার চলে না। আজকে আমি আপনাদের পান্তার সাথে পরিবেশন করার জন্য একটা সহজ রেসিপি দিচ্ছি, আর সেটা হলো ''মাখা ইলিশের পাতলা ঝোল '' .....এক হাত ঝোল আর একটুকরো মাছ হলে কাঁচা পেঁয়াজ দিয়ে নিমেষেই এক খানটি ভাত গায়েব করে দেয়া সম্ভব। ছোটবেলায় আম্মু এটা বানাতো , সকালের বাসি ভাতের সাথে খেতে সেই মজা। আজ সকালে আম্মুকে ফোন করে রেসিপি জেনে আমিও বানিয়ে নিলাম। আশা করি এই বৈশাখে আপনাদের কাজে আসবে :)

পহেলা বৈশাখের দিন কয়েকটি ভর্তার আয়োজন না করলে বাঙালির আয়োজনটা যেন ঠিক পরিপূর্ণ হয় না। ইলিশ মাছের আয়োজনের সাথে ভর্তার আয়োজনটাও কিন্তু বেশ মানাসই। তাই আজ রয়েছে ইলিশ মাছের সাথে বেগুন ভাজা দিয়ে একটা মজার ভর্তার রেসিপি। একটু স্পেশাল কিন্তু বাঙালি ঢঙয়ের মজার এই ভর্তার রেসিপিটি চলুন দেখে নিই…

ছুটির দিনগুলোতে পরিবারের সবার যেমন আবদার থাকে স্পেশাল কিছু খাওয়ার তেমনি গিন্নিমায়ের ও ইচ্ছে করে রান্না করার। কিন্তু আমরা যারা চাকরিজীবী আছি তাদের’ও তো এটা ছুটির দিন। তাই স্পেশাল খাবারের চক্করে সারাদিন রান্নাঘরে কাটাতেও মন চায় না। তাদের জন্য এই মোরগ পোলাও টাই মনে হয় এক ঢিলে দুই পাখি মারার মতো….স্পেশাল খাবার হলো….খাটনিও কম তাই আজ আপনাদের জন্য থাকছে ঝটপট তৈরি করা যায় এমন একটি মোরগ পোলাও এর রেসিপি । ঘরে পোলাও এর চাল আর মুরগি থাকলেই যথেষ্ট। বাকি উপকরন সবসময় সবার ঘরেই থাকে। চলুন দেখে নেই……।

বৈশাখ স্পেশাল ''পাতা গজা'' ??☘এবারের বৈশাখে নতুন কি বানাবো তাই ভাবছিলাম। অনেক ধন্যবাদ Ilora Awal আপুকে , দারুন এই আইডিয়া শেয়ার করার জন্য। আমি ওনার রেসিপি দেখেই করেছি আর সেটাই আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম। আপনাদের সুবিধার জন্য স্টেপ বাই স্টেপ ছবিও থাকলো :)

আমাদের দেশে শীতকালে প্রতিটি অঞ্চলেই বিভিন্ন উপলক্ষে পিঠা বানানো ও খাওয়ার উৎসব চলে। এটা আমাদের ঐতিহ্যেরই একটা অংশ। শীতকালিন পিঠার একটি বড় অংশই গুড়ের দখলে। তাই এবারের শীতে আপনাদের জন্য থাকলো গুড়ের জিলাপির রেসিপি। যারা এই জিলাপি খেয়েছেন তারা নিশ্চয় জানেন এটা কতটা মজার ! আর যারা খাননি.... তারা ঝটপট বানিয়ে খেয়ে নিন :)

আমি যখন ঘরে কোনো কাবাব আইটেম তৈরি করি তার সাথে অবশ্যই ওনিয়ন সালাদ আর ইয়োগার্ট চাটনী দিয়ে পরিবেশন করি। বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট গুলোতেও কিন্তু কাবাবের সাথে এভাবেই সালাদ ও চাটনী সার্ভ করা হয়। এই চাটনী খেতে যেমন মজার তেমনি হজমের জন্যও বেশ উপকারী। কাবাবের সাথে ঝাল ঝাল আবার হালকা টক-মিষ্টি ইয়োগার্ট চাটনী খুবই দারুন ভাবে মানায়। একদম সহজ ও সাধারণভাবে বানানো যায় এই মজার ইয়োগার্ট চাটনী।

এটি একটি জনপ্রিয় ইন্ডিয়ান কাবাব। এটি মূলত চিকেন লেগ বা রান দিয়ে করা হয়। টাংরি মানে ঠ্যাং বা পা এটা জানেন নিশ্চয় সবাই। আর সেই জন্যই এটার নাম এমন। দই আর নানারকম সুগন্ধি মশলার মিশ্রণে তৈরি একটি মজার একটা কাবাব। ছুটির দিনের জন্য একেবারে পারফেক্ট রেসিপি। সাধারণত , রান্না হতে কম সময় লাগার কারণে কাবাব বানানোর ক্ষেত্রে কিন্তু বুকের মাংসটাকেই সবাই প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। কিন্তু মজার ব্যাপারটা হচ্ছে, মুরগীর এই রানের অংশই কিন্তু সবথেকে মজার আর রসালো। এবং এই রসালো হবার কারণেই চমৎকার কাবাব হয় মুরগীর রান দিয়ে। আসুন জেনে নেই চিকেন টাংরি কাবাব এর দারুন সেই রেসিপি টি । হাতের কাছে থাকা সাধারণ উপকরণে তৈরি হয় বলে ঘরে চুলাতেই বানাতে পারবেন। টাকা খরচ করে আর হোটেলে গিয়ে খেতে হবে না।

কাবাব শব্দটির ভিতর একটা রাজকীয় ব্যাপার স্যাপার থাকে তাই না…? এটা খেতে যেমন মজার তেমন ঘরে বানানোটা একটু ঝামেলার মনে হয় আমাদের। সেই ভয়ে আমরা কাবাব বানাতেই চাই না। আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি চিকেন টিক্কা কাবাব এর রেসিপি। টিক্কা কাবাব তো অনেক রকম হয় তবেঁ আমি আজ মালাই টিক্কা কাবাবের রেসিপি নিয়ে আসছি । সহজ রেসিপি বাসায় একবার ট্রাই করে দেখবেন। দারুন সুস্বাদু মসলাদার এই কাবাব মুখে দিলেই ইয়াম ইয়াম ..... :D

ঈদের দিন বা বিশেষ কোনো অনুষ্ঠান আয়োজনে আমরা বাঙালিরা সেমায়টাকে সবার প্রথম ডেসার্ট অথবা মিষ্টি হিসেবে রাখতে চাই। আর সেই সেমাইয়ের রেসিপিটাকেই আমি কিছুটা পরিবর্তন করে বানিয়েছি এই মজার পুডিংটি। ভীষণ মজার এই সেমাইয়ের পুডিং তৈরী করা যায় সহজ ৩ টি উপায়ে। আমি সবগুলো উপায়েই করে দেখেছি , আপনাদের জন্য আমি তিনটি নিয়মই শেয়ার করছি যার কাছে যেটা ভালো লাগে সে সেভাবে করে নিবেন :)