শাহী গরম মশলা গুঁড়া

শাহী গরম মশলা গুঁড়া
শাহী গরম মশলা গুঁড়া

শাহী গরম মশলা গুঁড়া….বিরিয়ানী , কাবাব, রোস্ট , রেজালা বা যে কোনো ধরণের মাংস রান্না করতে চোখ বন্ধ করে ব্যবহার করা যায়। আমি সবসময় এক কৌটা এভাবে গুঁড়া করে ঘরে রেখে দেই, সময়ে-অসময়ে দারুন কাজে দেয় 🙂

উপকরণ


[tie_list type=”plus”]

  • ছোট এলাচ -৩ টেবিলচামচ
  • বড় এলাচ -৩ টেবিলচামচ
  • দারুচিনি – ৮/৯ টা স্টিক বা ৩ টেবিলচামচ
  • তেজপাতা – ৫ টি
  • লবঙ্গ -৩ টেবিলচামচ
  • জয়ত্রি -৩ টেবিলচামচ
  • জায়ফল – ১ টি
  • তারকা মৌরি -৭/৮ টি
  • সাধারণ মৌরি -২ টেবিলচামচ
  • শাহী জিরা -৩ টেবিলচামচ
  • সাধারণ জিরা -৩ টেবিলচামচ
  • গোটা ধনিয়া -৩ টেবিলচামচ
  • গোলমরিচ -৩ টেবিলচামচ
  • পোস্ত দানা -৩ টেবিলচামচ
  • শুকনা মরিচ – ৬ /৭ টি

[/tie_list]

প্রণালী :


১। উপকরণে যে মশলাগুলোর নাম বলেছি সেগুলো সব সমপরিমানে নিতে হবে। আমি ৩ টেবিলচামচ মতো আন্দাজে নিয়ে নিয়েছি। যেগুলো চামচে মেপে নিতে পারবেন না সেগুলো নিজের আন্দাজ মতো নিবেন বা উপকরণে যেভাবে বলা আছে সেটা নিবেন। আর যেগুলো আমার কাছে মনে হয়েছে অনেকে চিনতে পারবেন না সেগুলো আমি লিংক অ্যাড করে দিয়েছি। ওই নামের উপর ক্লিক করলে ওটার ছবি চলে আসবে।

২। এখন আপনি ২ টা উপায়ে মশলাটা গুঁড়া করতে পারেন। একটা হলো এই সব উপকরণ শুকনা তাওয়াতে নিভু আঁচে হালকা করে টেলে নিয়ে ঠান্ডা করে নিন। চাইলে প্রতিটি উপাদান আলাদা আলাদা করেও টেলে নিতে পারেন। তারপর ব্লেন্ডারে’র মশলা গুঁড়া করার জন্য যে জার থাকে সেটাতে দিয়ে মিহি করে গুঁড়া করে নিবেন ।

৩। তবে মনে রাখবেন একটানা বেন্ডার চালু করে গুঁড়া করতে যাবেন না। এতে ব্লেন্ডার গরম হয়ে নষ্ট হওয়ার যেমন আশংকা থাকে পাশাপাশি মশলার গুঁড়ো বেশি তাপে গরম হয়ে সুগন্ধ হারিয়ে ফেলে। তাই নিয়ম হলো বেশ কয়েকবার করে ১০-১৫ সেকেন্ডের জন্য ব্লেন্ডার চালু করে করে গুঁড়া করে নিতে হবে। আর প্রতিবার ব্লেন্ডার অফ করার পর ঢাকনা খুলে চামচ দিয়ে ভালো করে নেড়েচেড়ে মিশিয়ে দিতে হবে। হয়ে গেলে কৌটা ভর্তি করে রেখে দিন। আর হ্যাঁ কৌটার মুখ কিন্তু ভালো মতো লাগিয়ে নিবেন।

৪। দ্বিতীয় পদ্ধতি হলো সব মশলা না ভেজেই কাঁচা অবস্থায় ব্লেন্ডারে , হামানদিস্তা বা পাটাতে যেটাতে আপনার খুশি মিহি গুঁড়া করে নিতে হবে। আমি দ্বিতীয় পদ্ধতিতেই বেশি করে থাকি। কারণ আমার কাছে মনেহয় সবকিছু কাঁচা অবস্থায় গুঁড়া করলে টাটকা একটা সুগন্ধ আসে যা ভেজে নেয়ার পর করলে আসে না। তবে এভাবে মশলা গুঁড়া করলে মশলাটা অবস্যই ভালো কোনো এয়ার টাইট কৌটাতে ভোরে ফ্রিজে রেখে ব্যাবহার করবেন , তাহলে অনেকদিন পর্যন্ত এর রাজকীয় সুগন্ধ বজায় থাকবে।