অন্যান্যডিমের রেসিপিবিকেলের নাস্তা ও স্নাক্স

মোঘলাই/ মোগলাই পরোটা

আমরা সবাই কমবেশি মোগলাই পরোটা খেতে পছন্দ করি আর সেজন্য ছুটি হোটেল-রেস্তোরার পানে। কিন্তু সেগুলো কতটা স্বাস্থ্যকর কখনো ভেবে দেখেছেন কি ? রাস্তার পাশের এসব হোটেলের খাবার যারা খেতে চান না, তারা বাড়িতে চাইলেই বানিয়ে নিতে পারেন মজাদার মোগলাই পরোটা। কি চলবে নাকি ? :D

উপকরনঃ


  • ময়দা দেড় কাপ
  • তেল ২ টেবিল চামচ
  • লবন ও পানি প্রয়োজন মত

১। সব একসাথে মেখে খামির করে নিতে হবে। তারপর মিনিট ১০/১৫ ঢেকে রেখে দিন।

কিমার পুরের জন্য লাগবে :

  • মাংসের কিমা ১/২ কাপ( আমি চিকেন দিয়ে করেছি
  • আদা-রসুন বাটা ১ চা চামচ
  • পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ
  • কাঁচামরিচ কুচি ৬/৭ টি
  • ধনেপাতা কুচি ২ টে চামচ
  • গোলমরিচ গুড়া ১/২ চা চামচ
  • টেস্টিং সল্ট ১/৪ চা চামচ
  • গরম মশলা ১/৪ চা চামচ
  • লবন স্বাদ মত

অন্যান্য :

  • ডিম ৩-৪ টি
  • পেঁয়াজ কুচি ১/২ কাপ- একদম মিহি কুচি
  • তেল ভাজার জন্য

প্রনালিঃ


১। একটা প্যানে ২ টেবিল চামচ তেল গরম করে তাতে আদা-রসুন বাটা দিয়ে একটু নেড়ে চিকেন কিমা দিয়ে দিন। মাংসের রং পাল্টে সাদাটে হয়ে আসলে এতে ডিম বাদে বাকি সব উপকরণ দিয়ে ৫ থেকে ৮ মিনিট নেড়েচেড়ে পেঁয়াজ চকচকে ও পুরো মিশ্রণ টা শুকনা শুকনা হলে নামিয়ে নিন। এরই মধ্যে চিকেন ও সেদ্ধ হয়ে যাবে সাথে পেঁয়াজকুচি গুলোও কিছুটা নরম হয়ে যাবে যা খেতে অনেক ভালো লাগবে।

২। এবার মাখিয়ে রাখা খামিরটাকে সমান ৪ ভাগে ভাগ করে নিন। প্রতিটা ভাগকে বেশ পাতলা ও বড় করে বেলে নিতে হবে। সাধারণ রুটি যতটা পাতলা হয় তার থেকে আর একটু বেশি পাতলা করতে হবে। তাহলে ভাজার সময় ভেতরে ডিম কাঁচা থাকবে না ও ফুলবে ভালো । বেলে রাখা পাতলা রুটির ওপর সমান করে চিকেনের পুর ও অল্প কিছু পেঁয়াজ কুচি বিছিয়ে নিয়ে এর উপর একটা ডিম ভেঙে হাত বা চামচ দিয়ে একটু ছড়িয়ে দিয়ে চারকোনা করে ভাজ করে মুখ বন্ধ দিন। ভাঁজটা এমন হতে হবে যেন ভেতরের ডিম বাইরে বেরিয়ে না আসে।

৩। মাঝারি আঁচে প্যানে তেল গরম করে নিয়ে ভাঁজ করা পরোটা গুলো সাবধানে তেলে ছাড়তে হবে। তারপর মোটামুটি ডুবোতেলে মাঝারি আঁচে এপিঠ-ওপিঠ ভেজে নামিয়ে নিন। আস্তে আস্তে পরোটা ফুলে ফেঁপে উঠবে। খুব বেশি আঁচ থাকলে কিন্তু বাইরে তাড়াতাড়ি কালার এসে যাবে ডিম ভেতরে কাঁচা রয়ে যাবে। এভাবে বাকি গুলো করে নিন। গরম গরম শসার সালাদ ও মশলা ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।

টিপস :


১। আমি চারটা পরোটাতে চারটা ডিম্ আলাদা আলাদা দিয়েছি। আপনারা চাইলে তিনটা ডিম একসাথে গুলে নিয়ে রুটির মাঝে ফেটানো ডিম ছড়িয়ে দিয়ে চার পাশ থেকে ভাঁজ করে নিতে পারেন।

২। ডুবোতেলে বলতে আপনাকে কাড়ি খানেক তেলের মধ্যে ভাজতে হবে না। চারপাশ থেকে পরোটা অর্ধেক বা তার কম তেলের মধ্যে থাকলেই চলবে। আপনাকে যেটা করতে হবে চামচ দিয়ে চারপাশ থেকে পরোটার উপর তেল একটু একটু করে উঠিয়ে দিলেই হবে।

৩। আপনি চাইলে কাঁচা পেঁয়াজকুচি বাদ দিতে পারেন বা পুরোটাই কাঁচা পেঁয়াজ দিয়ে করতে পারেন।

৪। আর চিকেন কিমা’র ক্ষেত্রে আমি যেটা করি হাড়ছাড়া মুরগির মাংস একটুকরো আদা, ২/১ কোয়া রসুন ও সামান্য লবন দিয়ে ব্লেন্ডারে পিষে নেই। এতে কিমাও রেডি আলাদা করে আদা-রসুন বাটার ও প্রয়োজন পড়ে না।

৫। অনেক সময় রুটির ভিতরে ডিম দেয়ার পর , পিঁড়ি থেকে আর রুটি টা উঠিয়ে তেলে দেয়া যায় না,,রুটি টা ডিমের মিশ্রনের কারনে ভিজে যায় আর ওঠাতে গেলে রুটিটা ছিড়ে ডিম্ বের হয়ে যায়। এই সমস্যার সমাধান হলো ডিম রুটির উপর রাখার আগে পিঁড়ি বা টেবিলের উপর কিছুটা শুকনা ময়দা ছড়িয়ে দেয়া। এবং ঠিক যে জায়গাটাতে ডিমের মিশ্রণ দেয়া হবে সেখানে ও হালকা করে শুকনা ময়দা দিয়ে চেপে নিবেন। আর ডিম্ দেয়ার পর ঝটপট ভাঁজ করে তেলে দিয়ে দিতে হবে। দেরি করলেই ঝামেলা …. ;)
আর হ্যাঁ রুটিটা বেলার সময় ও খেয়াল রাখবেন যাতে কোনো ছিদ্র বা ফাটা না থাকে তাহলেও কিন্তু ডিম্ বের হয়ে যাবে।


Tags

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close