গুড়াদুধের তৈরি পেড়া সন্দেশ রেসিপি

পেড়া সন্দেশ বাংলাদেশের নওগাঁ জেলায় উৎপন্ন দুধ দিয়ে তৈরি এক প্রকার মিষ্টান্ন। দুধের ক্ষীর দিয়ে পেড়া সন্দেশ বানানো হয়। নওগাঁর সেই পেড়া সন্দেশ তৈরি করতে অনেক দুধ ও অনেক লম্বা সময়ের দরকার হয়। যা কিছুটা কষ্টসাপেক্ষও বটে। তাই আজ আমি খুব সহজ পদ্ধতিতে এই পেড়া সন্দেশ বানিয়ে দেখাবো যাতে সময় অনেক কম লাগে। আশা করছি আপনাদের ভালো লাগবে। নওগাঁর সেই দুধ পেড়া সন্দেশের রেসিপিও আপনারা খুব তাড়াতাড়ি পেয়ে যাবেন।
পেড়া সন্দেশ
পেড়া সন্দেশ
DMCA.com Protection Status

গুড়াদুধের পেড়া সন্দেশ রেসিপি


Get it on Google Play
গ্রামের দিকে এখনো মনে হয় কেউ কোথাও বেড়াতে গেলে হাতে মিষ্টির প্যাকেট নিয়ে যায়। আমার এক কাজিনের নানা আসতো সবসময় পেড়া সন্দেশ নিয়ে। কি যে মজার ছিল সেই সন্দেশ গুলো। আজ আমিও বানিয়েছি সেই মজার সন্দেশ। পেড়া সন্দেশ অনেক ভাবে বানানো যায়, তবে আমি যে পদ্ধতিতে বানিয়েছি আপনাদের জন্য সে রেসিপি টাই থাকছে।

উপকরণ

  • দেড় কাপ খোয়া
  • ১/২ কাপ বা স্বাদমতো চিনি গোটা / গুঁড়ো
  • সামান্য ঘি

নোটসঃ

  • এইতো গেলো পেড়া'র রেসিপি। আমি জানি এই রেসিপি পড়ে অনেকেই জানতে চাইবেন খোয়া কি ? খোয়া কোথায় পাবো? কেমনে বানাতে হয় ? কেনা যাবে কিনা ইত্যাদি ইত্যাদি। তাদের জন্য বলছি খোয়া আর মাওয়া একই জিনিস….এটা আসলে মিল্ক সলিড। আপনি চাইলে এটা কিনেও নিতে পারেন। মিষ্টির দোকান বা সুপার শপ গুলোতে পাওয়া যাবে। বাসায় বানাতে চাইলেও বানানো যাবে। অনেক ভাবেই খোয়া বা মাওয়া বানানো যায়।

ঘরে খোয়া বানানোর জন্য আপনাদের লাগবেঃ

  • ১ কাপ ছানা
  • ১/৩ কাপ দুধ গুঁড়া
  • ১/৩ কাপ দুধ তরল
  • ৩ টেবিল চামচ বাটার বা, ঘি

প্রস্তুত প্রণালী

  • চুলায় একটা নন-স্টিক প্যান অল্প আঁচে গরম করে নিয়ে খোয়া ঢেলে দিন। তারপর মিনিট ৩-৪ একটা কাঠের চামচ দিয়ে নেড়ে নেড়ে ভুনে নিন। তারপর চিনি অ্যাড করে আবার নাড়তে থাকুন। আরো মিনিট ২-৪ পর নামিয়ে নিন।
  • নামানোর পর নেড়ে একটু ঠান্ডা করে নিন। হাতের তালুতে সহ্য হয় এমন গরম থাকতেই মিশ্রণ টা দিয়ে পেড়া বানিয়ে নিতে হবে। গরম অবস্থায় নরম দেখালেও ঠান্ডা হলে অনেকটা টাইট হয়ে যাবে। এর জন্য হাতে ঘি মাখিয়ে ইচ্ছেমতো শেপ দিয়ে নিন। চাইলে নকশা কাটা ছাঁচে বসিয়েও বানাতে পারেন। হয়ে গেলে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

ঘরে খোয়া বানানোর প্রণালীঃ

  • একটা নন-স্টিক প্যান অল্প আঁচে গরম করে নিয়ে বাটার বা ঘি যেটা পছন্দ দিয়ে গলিয়ে নিন। আমি বাটার দিয়ে করেছি। বাটার গোলে গেলে এতে তরল ও গুঁড়া দুধ দিয়ে নেড়ে মিশিয়ে নিন। তারপর এতে ছানা ঢেলে ক্রমাগত নেড়ে নেড়ে মিশাতে থাকুন। এমন ভাবে মেশাবেন যাতে কোনো দলা পাকিয়ে না থাকে বা তলায় লেগে না যায় ।
  • মিশ্রণটা দেখতে প্রথমে হালুয়ার মতো লাগবে তারপর আস্তে আস্তে একটা সফট ডো এর টেক্সার এ চলে আসবে। আর আপনাকে কিন্তু নাড়ানাড়ি করে যেতেই হবে। যেহেতু আঁচ অনেক কম থাকবে পুরোপুরি তৈরী হতে আপনার ৭ থেকে ১০ মিনিটের মতো লাগতে পারে।
  • হয়ে গেলে নামিয়ে একটু ঠান্ডা করে নিন। এইতো আপনার খোয়া তৈরী হয়ে গেলো। এরপর আমি এই হালকা গরম খোয়ার মধ্যে হাফ কাপ চিনি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়েছি। তারপর আবার চুলায় দিয়ে মৃদু আঁচে আরো ৩/৪ মিনিট নেড়ে নেড়ে আঠালো করে নামিয়ে নিয়েছি।
  • বাকি প্রণালী তো আগেই বলেছি……… নামানোর পর নেড়ে একটু ঠান্ডা করে নিন। হাতের তালুতে সহ্য হয় এমন গরম থাকতেই মিশ্রণ টা দিয়ে পেড়া বানিয়ে নিতে হবে। গরম অবস্থায় নরম দেখালেও ঠান্ডা হলে অনেকটা টাইট হয়ে যাবে। এর জন্য হাতে ঘি মাখিয়ে ইচ্ছেমতো শেপ দিয়ে নিন। চাইলে নকশা কাটা ছাঁচে বসিয়েও বানাতে পারেন। হয়ে গেলে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।
Get it on Google Play