কেক খেতে পছন্দ করে না এমন খুব কম মানুষই আছে। আর বিশেষ দিনগুলোতে যেমন জন্মদিন, বিবাহ বার্ষিকীতে কেক ছাড়া তো আমাদের চলেই না। তবে আজ একটু ভিন্ন ধরনের কেক রেসিপি জানবো। সুজির কেক বাসবুসা বা সেমোলিনা কেক মধ্যপ্রাচ্যের ভীষণ জনপ্রিয় একটি ডেজার্ট। এই কেকটির প্রধান বৈশিষ্ট্য এটি আটার বদলে সুজির দিয়ে তৈরি। খুবই কম সময়ে আর খুব সহজেই তৈরী করা যায় এই অসাধারণ ডেসার্ট। চলুন দেখে নেই সেই দারুন রেসিপিটি :)

জাপানী কারটুন ক্যারেক্টার ডোরেমন এর কথা নিশ্চয়ই আপনাদের জানা আছে? প্রতিটা বাচ্চারই ফেভারিট কারটুন "ডোরেমন"। আর আমি নিশ্চিত যে বাচ্চারা ডোরার কেক সম্পর্কে জানে এবং খেতে খুবই আগ্রহী। ডোরায়াকি/ দোরায়াকি এক প্রকার জাপানি মিষ্টান্ন। এটি দুইটি প্যানকেক এর সমন্বয়ে গঠিত । খেতে খুবই সুস্বাদু এবং বাচ্চাদের খুবই প্রিয় এর প্যানকেকটি কীভাবে সহজেই ঘরে বসেই তৈরি করতে পারবেন,আজ আমি সে রেসিপিটি শেয়ার করবো আপনাদের সাথে...

আমার কাছে এটা অনেকটা কর্নফ্লাওয়ার হালুয়া বা বোম্বে করাচি হালুয়ার মতো লাগে। আমি জার্মানিতে থাকি, এখানকার টার্কিশ শপগুলো নানা রঙের ও ঢঙের টার্কিশ ডিলাইট পাওয়া যায়। তবে সেগুলো এত বেশি মিষ্টি যে এক টুকরো ও পুরোটা খেতে পারিনা আমি। তবে এটা মোটামুটি কম মিষ্টি হয়েছে। আসলে রেসিপিটি এমন যে চাইলেও একেবারে কম মিষ্টি দেয়া সম্ভব হয় না। চলুন আমরা দেখে নেই কিভাবে বানাতে হবে এটা তার পুরো প্রস্তুত প্রণালী।

আড্ডার টেবিলে চায়ের কাপে ঝড়…..এই প্রবাদ তো সবারই শোনা। তবে আজকাল চায়ের পাশাপাশি কফিকেও সমান ভাবে গ্রহণ করছেন অনেকেই। বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের আড্ডা’তে এক মগ গরম ধোঁয়া-ওঠা কফি ছাড়া কি চলে? নানারকম কফির মধ্যে ক্যাপাচিনো কফির কদরটা যেন সবথেকে বেশি। আর সোশ্যাল মিডিয়ার এই সময়ে ক্যাপাচিনো নতুনরূপে ডালগোনা নামে যেন আরো বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আসলে ডালগোনা আর ক্যাপাচিনো’র মধ্যে তেমন তফাৎ নেই…..বানানোর পদ্ধতি মোটামুটি একই। পার্থক্য এটাই ক্যাপাচিনো খাওয়া হয় গরম আর ডালগোনা গরম ঠান্ডা দুইভাবেই খাওয়া যায়, এমনকি চাইলে চকোলেট মিশিয়েও খাওয়া যায়। চলুন তাহলে কফি মেশিন ছাড়া কফিশপের মতো এককাপ গরম কফি ঘরেই বানিয়ে নেয়া যাক। রেসিপি দেখে ভয় পাবেননা আমি আপনাদের বোঝার জন্য একটু বিস্তারিত লিখেছি, নাহলে এটা তিন লাইনেই শেষ করা সম্ভব।